Header Border

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২২শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ৯ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ (বসন্তকাল)
শিরোনাম
হাজিগঞ্জের বইমেলায় ছাত্রলীগের স্টল পরিদর্শন করলেন মেজর (অবঃ) রফিকুল ইসলাম বীরউত্তম  হাজীগঞ্জে চারদিন ব্যাপী একুশে বই মেলার উদ্বোধন নারায়ণগঞ্জে অস্ত্র কারখানা শনাক্ত : আটক ১ নারায়ণগঞ্জে অস্ত্র কারখানা শনাক্ত : আটক ১ হাজীগঞ্জে চারদিন ব্যাপী একুশে বই মেলার উদ্বোধন করলেন প্রকৌ. মোহাম্মদ হোসাইন শাহরাস্তি প্রেসক্লাবের আয়োজনে মহান একুশে ফেব্রুয়ারি মাতৃভাষা দিবস পালিত। বিশৃঙ্খলা আর হট্টগোলের মধ্য দিয়ে কচুয়ায় মাতৃভাষা দিবস উদযাপন হাজীগঞ্জে কুকুরের কামড়ে ১০ জন আহত  হাজীগঞ্জে বই মেলার সমাপনি দিনে ৫ জন লেখককে সংবর্ধনা ও ৪টি বইয়ের মোড়ক উন্মোচন হাজীগঞ্জে দুই সন্তানকে নিয়ে বিষপান,মায়ের মৃত্যু 

পরমাণু যুদ্ধ শুরু হলে যে পাঁচ জায়গায় মোটামুটি নিরাপদ

একটি হিসাব অনুযায়ী, বর্তমানে বিশ্বে পারমাণবিক বোমার সংখ্যা ১৩ হাজারের বেশি। বিশ্বের মোট ৮টি দেশের কাছে এগুলো রয়েছে। বর্তমানে ইউক্রেনের সাথে যুদ্ধরত রাশিয়ার কাছে একাই ৬৮০০ পারমাণবিক বোমা আছে, আমেরিকার কাছেও এই বিধ্বংসী অস্ত্রের সংখ্যা হাজারে। রাশিয়া যদি এই অস্ত্রটি কোথাও ব্যবহার করত, পৃথিবী বিপদে পড়ত, তবে ৫টি জায়গা এখনও নিরাপদ থাকবে।

দ্য সান-এর প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, পারমাণবিক যুদ্ধের সময় এটি অ্যান্টার্কটিকা মহাদেশে প্রভাব ফেলবে না। এ কারণে ১৯৬১ সালের জুন মাসে চুক্তি এর আওতায় এখানে যেকোনো ধরনের সামরিক তৎপরতা নিষিদ্ধ করা হয়েছে। এই চুক্তিতে বিশ্বের অধিকাংশ দেশ পারমাণবিক শক্তিধর দেশ। এমন পরিস্থিতিতে এই মহাদেশে পারমাণবিক অস্ত্র ব্যবহার করা হবে না।

আমেরিকা পরমাণু যুদ্ধে জড়িয়ে পড়লেও ওই মহাদেশে বর্তমান কলোরাডোর পাহাড়ি এলাকা (এল পাসো কাউন্টি, কলোরাডো) যুদ্ধের প্রভাব পড়বে না। কারণ, এই স্থানে পাহাড়ের (শেয়ান পর্বত) ভেতরে একটি নিউক্লিয়ার প্রুফ গুহা রয়েছে। এই গুহার প্রবেশপথে ২৫ টন ওজনের একটি বিশাল দরজা রয়েছে যা একটি পারমাণবিক বোমাও গলতে পারে না। এটি উত্তর আমেরিকার মহাকাশ প্রতিরক্ষা কমান্ড এবং মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের উত্তর কমান্ডের সদর দফতর এবং সোভিয়েত ইউনিয়নের আক্রমণ মোকাবেলা করার জন্য ১৯৬৬ সালে আমেরিকা দ্বারা নির্মিত হয়েছিল।

তৃতীয় স্থানে, যা পারমাণবিক অস্ত্র থেকে নিরাপদ, উত্তর মেরুতে অবস্থিত একটি ছোট দেশ আইসল্যান্ড। সারা বছর বরফে ঢাকা থাকে আইসল্যান্ড একটি নিরপেক্ষ দেশ। বিশ্বের কোনো দেশ তাকে শত্রু হিসেবে দেখে না। তাই এখানে পারমাণবিক হামলার আশঙ্কা খুবই কম। পরমাণু নিরাপদ স্থানের তালিকায় পরবর্তী নামটি প্রশান্ত মহাসাগরের একটি ছোট দ্বীপ গুয়াম। গুয়ামের জনসংখ্যা মাত্র ১ লাখ ৬৮ হাজার এবং এখানে সেনাবাহিনী মাত্র ১৩০০ জন। এই দেশটি সম্পূর্ণভাবে পর্যটনের উপর নির্ভরশীল এবং কোন দেশই এর শত্রু নয়। এখানে পারমাণবিক হামলার কোনো আশঙ্কা নেই। কল্পনা করুন যে মাত্র ২৮০ জন পূর্ণকালীন সৈন্য সহ একটি দেশ কতটা নিরাপদ হবে!

আরো পড়ুন  হাজীগঞ্জে ট্রেনে কাটা পড়ে দ্বিখণ্ডিত যুবক

এই তালিকার শেষ নামটি কিছুটা চমকপ্রদ। সাধারণত মুসলিম দেশগুলো থেকে ইসরাইলের অস্তিত্ব মুছে ফেলার হুমকি পাওয়া যায়। এতদসত্ত্বেও ইসরাইলে পারমাণবিক হামলার আশঙ্কা কমে যায় কারণ সেখানে মুসলিম, খ্রিস্টান ও ইহুদি ধর্মের অতি প্রাচীন নিদর্শন রয়েছে, যেগুলো কেউ ধ্বংস করতে চাইবে না। এমন পরিস্থিতিতে পারমাণবিক হামলার প্রশ্নই ওঠে না। সূত্র: দ্য সান।

আপনার মতামত লিখুন :

আরও পড়ুন

হাজিগঞ্জের বইমেলায় ছাত্রলীগের স্টল পরিদর্শন করলেন মেজর (অবঃ) রফিকুল ইসলাম বীরউত্তম 
নারায়ণগঞ্জে অস্ত্র কারখানা শনাক্ত : আটক ১
হাজীগঞ্জে কুকুরের কামড়ে ১০ জন আহত 
হাজীগঞ্জে দুই সন্তানকে নিয়ে বিষপান,মায়ের মৃত্যু 
সন্তানদের স্মার্টফোনের আসক্তি দূর করে বইয়ের প্রতি আগ্রহী করতে হবে : ইউএনও তাপস শীল
শাহরাস্তিতে বলশীদ দক্ষিণ পাড়া জামে মসজিদের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন করলেন নেহাল আহমেদ আতিকী জৈনপুরী

আরও খবর