Header Border

ঢাকা, শুক্রবার, ২৩শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ১০ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ (বসন্তকাল)
শিরোনাম
ফরাজীকান্দি ইউনিয়নে নিবন্ধিত জেলেদের মাঝে চাল বিতরণ আওয়ামী লীগের ত্যাগী নেতা কর্মীদের মূল্যায়ন করতে হবে —মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া বীরবিক্রম এমপি ফরিদগঞ্জে শিশু বলৎকারের ঘটনায় যুবক আটক  মহিলা ভাইস-চেয়ারম্যান পদে প্রার্থীতা ঘোষণা দিলেন শ্যামলী খান এসিল্যান্ড ইবনে আল জায়েদকে পদোন্নতি বিদায় সংবর্ধনা নারায়ণগঞ্জে আর কে গ্ৰুপে বেতনের দাবিতে শ্রমিকদের আন্দোলন  হাজীগঞ্জ ডিগ্রি কলেজে সুষ্ঠুভাবে গভর্ণিং বডির প্রতিনিধি নির্বাচন সম্পন্ন নারায়ণগঞ্জে দানিয়াল হত্যা মামলার আসামি গ্রেফতার  হাজিগঞ্জের বইমেলায় ছাত্রলীগের স্টল পরিদর্শন করলেন মেজর (অবঃ) রফিকুল ইসলাম বীরউত্তম  হাজীগঞ্জে চারদিন ব্যাপী একুশে বই মেলার উদ্বোধন

বিচ্ছেদের ছয় মাস পর আদালতের মাধ্যমে আবার সংসারে ফিরলেন তাঁরা

দীর্ঘ ১৭ বছরের সংসারজীবন অতিবাহিত করেছিলেন শাহানুর ইসলাম ও আকতারা বানু। এ সময়ে তাঁদের সংসারে জন্ম নেয় তিন সন্তান। সংসারের ছোটখাটো কলহের জেরে ছয় মাস আগে ওই দম্পতির সংসারজীবনে ফাটল ধরে। রাগের বশবর্তী হয়ে বিচ্ছেদ হয় তাঁদের। দুই মেয়েকে নিয়ে আকতারা বানু বাবার বাসায় ফিরে যান। ছেলে রয়ে যায় বাবার সঙ্গে।

এমন পরিস্থিতিতে ওই দম্পতির জীবন হয়ে ওঠে দুর্বিষহ, বিপাকে পড়ে তিন সন্তান।

অবশেষে, গতকাল রোববার পঞ্চগড়ের অতিরিক্ত চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক মতিউর রহমানের হস্তক্ষেপে বিচ্ছেদ থেকে মুক্তি পান ওই দম্পতি। বিচারকের খাস কামরায় মৌলভী ডেকে দুই আইনজীবী ও পরিবারের লোকজনের সামনে ইসলামী শরিয়াহ মোতাবেক এক হাজার টাকা নগদ দেনমোহরে তাঁদের আবার বিয়ে পড়ানো হয়।

ওই দম্পতির বাড়ি পঞ্চগড়ের বোদা উপজেলায়।

আদালত, আইনজীবী এবং ওই দম্পতি সূত্রে জানা গেছে, দাম্পত্য কলহের জেরে ১৭ বছরের সংসারজীবনে ছয় মাস আগে তাঁদের বিয়ে বিচ্ছেদ হয়ে যায়। এ ঘটনার পর আকতারা বানু স্বামীর বিরুদ্ধে গত ৩০ মার্চ আদালতে যৌতুকের দাবিতে নির্যাতনের অভিযোগ তুলে মামলা করেন। মামলাটি আমলে নিয়ে আদালত সমন জারি করেন। গতকাল রোববার আদালতে উপস্থিত হয়ে জামিন আবেদন করেন শাহানুর। তাঁর ইচ্ছা ছিল আদালতেই দেনমোহরের এক লাখ এক হাজার টাকা পরিশোধ করবেন। কারাগারে গেলেও আকতারার সঙ্গে ঘর-সংসার করবেন না বলেই জেদ চেপে ধরেন তিনি।

তবে, শাহানুর আদালতের এজলাসে জামিন নিতে উপস্থিত হলে নাটকীয় ঘটনার অবতারণা হয়। তিন সন্তানকে দেখে ওই দম্পতি আবেগাপ্লুত হয়ে পড়েন। জামিন আবেদনের শুনানির সময় বিচারকও তিন সন্তানের মুখ চেয়ে ওই দম্পতিকে কলহ ভুলে আবার সংসারে ফেরার অনুরোধ করেন। বিচারকের কথায় কিছুক্ষণ চুপ থেকে চিন্তা-ভাবনা করেন ওই দম্পতি। পরে আবারও সংসারে ফেরার কথা জানান তাঁরা। এরপর বিচারকের খাস কামরায় আদালতের মসজিদের ইমাম মাওলানা আব্দুল খালেক তাঁদের বিয়ে পড়ান। এরপর আপসনামা দাখিলের পর আদালতের আইনি প্রক্রিয়া শেষে তিন সন্তানকে নিয়ে বাড়ি ফেরেন শাহানুর ও আকতারা বানু।

আরো পড়ুন  ভাবগাম্ভীর্যে প্যারাপুর উচ্চ বিদ্যালয়ে ভাষা শহীদ দিবস পালিত

আকতারা বানু বলেন, ‘আমি আমার সন্তানদের ভবিষ্যৎ নিয়ে চিন্তিত ছিলাম। এখন আমরা আবারও এক সঙ্গে থাকব। আমি বিচারকের প্রতি কৃতজ্ঞ।

আপনার মতামত লিখুন :

আরও পড়ুন

ফরাজীকান্দি ইউনিয়নে নিবন্ধিত জেলেদের মাঝে চাল বিতরণ
আওয়ামী লীগের ত্যাগী নেতা কর্মীদের মূল্যায়ন করতে হবে —মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া বীরবিক্রম এমপি
ফরিদগঞ্জে শিশু বলৎকারের ঘটনায় যুবক আটক 
নারায়ণগঞ্জে দানিয়াল হত্যা মামলার আসামি গ্রেফতার 
হাজিগঞ্জের বইমেলায় ছাত্রলীগের স্টল পরিদর্শন করলেন মেজর (অবঃ) রফিকুল ইসলাম বীরউত্তম 
নারায়ণগঞ্জে অস্ত্র কারখানা শনাক্ত : আটক ১

আরও খবর